| |

Ad

হাতে বালিশ নিয়ে অভিনব প্রতিবাদ

আপডেটঃ ১:৫০ অপরাহ্ণ | মে ২০, ২০১৯

প্রকল্পে দুর্নীতির প্রতিবাদে জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে বালিশ হাতে প্রতিবাদী মানববন্ধনের আয়োজন করে বাংলাদেশ গণঐক্য সংগঠন।

পাবনায় নির্মাণাধীন রূপপুরে পারমাণবিক বিদ্যুৎ কেন্দ্রের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের আবাসিক এলাকায় আসবাবপত্র কেনাকাটা এবং সেগুলোর বহন খরচ নিয়ে যে দুর্নীতির অভিযোগ উঠেছে, সেটির প্রতিবাদে ঢাকায় এ অভিনব বিক্ষোভ হয়েছে।

ঢাকার প্রেসক্লাবে সামনে গণঐক্য এবং নাগরিক পরিষদ নামে দুটি সংগঠনের কিছু ব্যক্তি বালিশ হাতে নিয়ে এই বিক্ষোভ করেন। এই বিক্ষোভে ১৫ জনের মতো অংশ নেন।

আজ সোমবার বেলা সোয়া ১১টায় বাংলাদেশ গণঐক্য সভাপতি আরমান হোসেন পলাশের সভাপতিত্বে আয়োজিত মানববন্ধনে ‘দেশ বাঁচাও মানুষ বাঁচাও’ আন্দোলনের সভাপতি কে এম রকিবুল ইসলাম রিপন বলেন, উন্নয়নের অন্তরালে মহালুটপাটে মহাব্যস্ত মহাজোট সরকার। তিনি বলেন, আমি নতুন প্রজন্মের একজন রাজনীতিক কর্মী হিসেবে যখন দেখি মেগা প্রজেক্টে মহালুটপাটের উৎসব চলছে, তখন আমি হতাশ হই।

পলাশ বলেন, রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎ কেন্দ্রে যে হরিলুট হয়েছে তা ইতিহাসে সেরা। দুর্নীতির কালো মেঘ বাংলাদেশকে ঘিরে ফেলেছে। দেশে দুর্নীতির সঙ্গে বেড়েই চলেছে বেকারের সংখ্যা, কৃষকের হাহাকার।

জাগো বাংলাদেশ গার্মেন্টস ফেডারেশনের সভাপতি বাহারানে সুলতান বাহার, জাতীয় বিপ্লবী পার্টির আহ্বায়ক আবুল কালাম আজাদ, গণঐক্যের প্রচার সম্পাদক জাহাঙ্গীর আলম প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

সম্প্রতি একটি দৈনিক পত্রিকায় খবর প্রকাশিত হয়েছে যে পারমাণবিক বিদ্যুৎ প্রকল্পের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের থাকার জন্য নির্মিত বহুতল ভবনের ফ্ল্যাটগুলোর জন্য ১,৩২০টি বালিশ কেনা হয়েছে, যার প্রতিটির মূল্য দেখানো হয়েছে প্রায় ছয় হাজার টাকা। প্রতিটি বালিশ নিচ থেকে উপরে বহন করার খরচ দেখানো হয়েছে ৭৬০ টাকা।

নাগরিক পরিষদের আহবায়ক মো. শামসুদ্দিন বলেন, যেখানে একটি বালিশের বাজার মূল্য ২৫০ টাকা থেকে ৩০০ টাকা, সেখানে একটি বালিশের মূল্য দেখানো হয়েছে ছয় হাজার টাকা।