| |

Ad

ভারতে তাপদাহে মৃত্যের সংখ্যা বেড়ে ৬০

আপডেটঃ ৭:৪৬ অপরাহ্ণ | জুন ১৭, ২০১৯

ভারতের বিহারে তীব্র তাপ্রবাহে শনিবার পর্যন্ত ৬০ জনের মৃত্যু হয়েছে। মৃত্যু এড়াতে দিনের বেলায় ঘরের বাইরে যেতে নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে রাজ্যটির সরকার। খবর এনডিটিভির।

গয়া প্রশাসন ১৪৪ ধারা জারি করেছে। সাধারণত আইন-শৃঙ্খলা রক্ষা করতে এই নিয়ম জারি করা হলেও এই মুহূর্তে সাধারণ মানুষের ঘরের বাইরে বেরোনো থেকে দূরে রাখতেই ১৪৪ ধারা জারি করা হয়েছে। 

বিহারে যে সমস্ত এলাকাগুলিতে পরিস্থিতি খুব খারাপ, তারমধ্যে সবচেয়ে খারাপ অবস্থা গয়ায়। ঔরঙ্গাবাদ এবং নওদা থেকেও মৃত্যুর খবর পাওয়া গেছে। গত সপ্তাহে ঔরঙ্গাবাদ থেকে ২৭ জনের মৃত্যুর খবর পাওয়া গেছে।

এক বিবৃতিতে গয়া প্রশাসন জানিয়েছে, সকাল ১১টা থেকে বিকেল ৪টা পর্যন্ত বাইরে কোনো কাজ করা যাবে না। নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে নির্মাণকাজের ওপরেও। 

জেলা প্রশাসনের প্রধান অভিষেক সিং নির্দেশিকায় বলেছেন, এমজিএনআরজির অধীনে সকাল সাড়ে ১০টার পরে কোনো কাজ করা করা যাবে না। 

গয়ায় তাপপ্রবাহে সাধারণ মানুষের মৃত্যুর ঘটনাকে ‘দুর্ভাগ্যজনক’ বলে মন্তব্য করেছেন কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রী হর্ষবর্ধন। ওই সময়ের মধ্যে কাউকে বাইরে বেরোতেও নিষেধ করেছেন তিনি।

এবার সবচেয়ে বেশি তাপপ্রবাহের শিকার হয়েছে ভারত। গত ২৪ ঘণ্টায় বিশ্বের সবচেয়ে উষ্ণ ১৫টি জায়গার মধ্যে আটটিই ভারতের।

উত্তর ভারতের চারটি শহরে তাপপ্রবাহ রেকর্ড ছুঁয়েছে। ৪৮ ডিগ্রি তাপমাত্রা ছাড়িয়েছে দিল্লি, রাজস্থানের চুরু, বান্দা, এবং উত্তরপ্রদেশের এলাহাবাদ। 

তাপমাত্রা ৪৫ ডিগ্রি ছুঁলে এবং পরপর দুদিন তার বেশি যদি তাপমাত্রা থাকে, তাহলেই তাপপ্রবাহ বলা হয়। তাপপ্রবাহ ৪৭ ডিগ্রি সেলসিয়াস ছুঁয়ে গেলে ‘তীব্র’ বলা হয়।।

তীব্র গরমের সঙ্গে সঙ্গে বিহারের মুজফ্ফরপুরে দেখা দিয়েছে এনসেফেলাইটিস। এই রোগে আক্রান্ত হয়ে গত ১৬ দিনে সেখানে ১শ’ শিশুর মৃত্যু হয়েছে।