| |

Ad

ভয়ংকর করোনা ভাইরাস

আপডেটঃ ৬:০১ অপরাহ্ণ | জানুয়ারি ২৬, ২০২০

করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত ঘটনাটি প্রথম নজরে আসে চিনের ইউহান প্রদেশে। এ পর্যন্ত করোনা ভাাইরাসে প্রায় ৫৬ জনের মৃত্যুর খবর নিশ্চিত হওয়া গেছে।

চিকিৎসা বিজ্ঞানীরা এ ভাইরাসের নাম দিয়েছেন ‘2019 novel coronavirus (2019-nCoV)’। সংক্ষিপ্ত নাম করোনা ভাইরাস।  এই ভাইরাসটি প্যাথোজেন পরিবারের। যার কারণে এর আগে সার্স ও মার্স ভাইরাসের সংক্রমণ হয়েছিল।

বর্তমানে চিনের এক অজানা ভাইরাস যা করোনা ভাইরাস নামে পরিচিত সাধারণের কাছে। যার নেই কোনও নির্দিষ্ট চিকিৎসা আবার নেই এর নির্মূলের কোনও ভ্যাকসিন। বর্তমানে চিনের এই ভাইরাস ভয়ংকরভাবে চারদিকে ছড়াচ্ছে। জাপান, দক্ষিণ কোরিয়া, থাইল্যান্ড, যুক্তরাষ্ট্র, সিঙ্গাপুর, ভিয়েতনাম, তাইওয়ান, নেপাল, ফ্রান্স ও সৌদি আরবসহ অন্তত ১১টি দেশে এ ভাইরাসে আক্রান্ত রোগীর সন্ধান মিলেছে।

বিজ্ঞানীরা বলছেন, ভাইরাসটি হয়তো মানুষের দেহকোষের ভেতরে ইতিমধ্যেই ‘মিউটেট করছে’ অর্থাৎ গঠন পরিবর্তন করে নতুন রূপ নিচ্ছে এবং সংখ্যাবৃদ্ধি করছে – যার ফলে এটি আরো বেশি ভয়ংকর হয়ে উঠতে পারে। করোনা ভাইরাসের উপসর্গগুলো জেনে নিয়ে সকলের সাবধান থাকা দরকার।

করোনা’ ভাইরাসের উপসর্গ

  • করোনা হল কমন রেসপিরেটরি ভাইরাস ইনফেকশন।
  • করোনাভাইরাসের অনেক রকম প্রজাতি আছে, কিন্তু এর মধ্যে মাত্র ৭টি মানুষের দেহে সংক্রমিত হতে পারে।
  • মূলত জন্তু জানোয়ারের থেকে নোবেলা করোনা প্রকৃতির এই ভাইরাস থেকেই করোনা ভাইরাস সংক্রমণ হচ্ছে।
  • দেখা যাচ্ছে মাছ থেকে এবং মাছের বাজার থেকে এই সংক্রমণের উৎপত্তি।
  • ভাইরাল ইনফেকশনে মানুষ যেভাবে সর্দি, কাশি, জ্বরে আক্রান্ত হয় এই ভাইরাসেও তেমনই লক্ষণ দেখা যায় এবং এর থেকে হয় নিউমোনিয়া। যার থেকে প্রবল শ্বাসকষ্ট হয়। এমনকী ফুসফুসেও পানি জমে।
  • এই ভাইরাসের মোকাবিলায় অ্যান্টিবায়োটিক কাজ করে না।
  • পশুর লোম এবং মল থেকেও সংক্রমণের আশঙ্কা।
  • মানুষের শরীর থেকেও পশুদের দেহে এর সংক্রমণ ঘটে।
  • করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হাঁচি দিলে বা  কাশলেও তা ছড়িয়ে পড়ার সম্ভাবনা থাকে।
  • কথা বলার মতো দূরত্ব, হ্যান্ডশেক করার মতো দূরত্ব থেকেও করোনা ভাইরাস একজনের থেকে অন্যের শরীরে প্রবেশ ঘটায়।
  • করোনা ভাইরাসে আক্রান্তের চশমা অন্যজন ব্যবহার করলে তা থেকে সংক্রমণের আশঙ্কা রয়েছে।
  • ডায়ালেসিসে থাকা রোগীর থেকে ক্যান্সারে আক্রান্ত বা কিডনি বা লিভারের অসুখে ভুক্তভোগীদের খুব সহজেই কাত করে দিতে পারে এই করোনা ভাইরাস । যা থেকে মৃত্যু পর্যন্তও হতে পারে।

সাবধানতা

বিশেষজ্ঞদের মতে, যেহেতু রোগটি সংক্রমিত হয়, তাই সবারই সতর্কতামূলক ব্যবস্থা গ্রহণ করা উচিত। বিশেষ করে, হাঁচি-কাশির সময় রুমাল-টিস্যু-গামছা দিয়ে নাক-মুখ ঢেকে নেয়া। হাঁচি-কাশিরত ব্যক্তি থেকে নিরাপদ দূরত্বে অবস্থান করা। প্রয়োজনে মাস্ক ব্যবহার করা। বারবার দুই হাত সাবান-পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলা। সব ধরনের ফলমূল ভালো করে ধুয়ে খাওয়া।