| |

Ad

ফল যাই হোক জনরায়ে মেয়র হয়ে গেছি: ইশরাক

আপডেটঃ ৫:৫৭ অপরাহ্ণ | ফেব্রুয়ারি ০১, ২০২০

নির্বাচন নিয়ে নানা অভিযোগ করলেও ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশন নির্বাচনে বিএনপি মনোনীত মেয়র প্রার্থী ইঞ্জিনিয়ার ইশরাক হোসেন বলেছেন, ‘ফলাফল যাই ঘোষণা করা হোক, জনগণের মনে আমি জায়গা করে নিয়েছি। আমি বিশ্বাস করি জনগণের রায়ে আমি মেয়র হয়ে গিয়েছি।’

শনিবার বিকাল সাড়ে ৩টার দিকে শ্যামপুরের শেখ কামাল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় সেন্টারে গিয়ে তিনি সাংবাদিকদের এই কথা বলেন।

ইশরাক হোসেন বলেন, ‘এখানে প্রবেশ করার পর দেখতে পাই জনমানব শূন্য কাকপক্ষীও নেই। একজন ভোটারতো দূরের কথা কেউ ছিল না। আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা মেইন গেটে আর ভেতরে আমি দেখেছি তালা মারা ছিল। আমরা যখনই প্রবেশ করেছি তখন তড়িঘড়ি করে তারা তালা খুলে দিলেন।’

‘এখানে আমরা আরও একটি অভিযোগ পেয়েছি মেশিনে ধানের শীষের মার্কা দেখাচ্ছে না। আমি প্রিজাইডিং কর্মকর্তার সাথে কথা বলার চেষ্টা করলাম, উনি সম্পূর্ণ অস্বীকার করার চেষ্টা করলেন। তার ওখানেও জনমানবশূন্য, কেউ নাই।’

বিএনপির প্রার্থী বলেন, ‘এই ভোটকেন্দ্রে কোনো ভোটার নেই, কিন্তু ওনারা বলছেন এখানে ভোট হচ্ছে। আমার আর কিছু বলার নেই, যতগুলো কেন্দ্র ঘুরে এসেছি সবগুলোতে একই অবস্থা দেখেছি। পোলিং এজেন্টকে বের করে দিয়ে তারা নিজেরা নিজেরা ভোট সম্পন্ন করছেন।’

সকাল থেকে ভোট চলছে, শেষ হওয়ার আর মাত্র কয়েক ঘণ্টা বাকি, এই পর্যায়ে এসে আপনি কী বলবেন-এমন প্রশ্নে ইশরাক বলেন, ‘আমার প্রতিপক্ষ প্রার্থী তারা ভোটারদের অনেক ভয় পান। তাদের সিনিয়র নেতা আব্দুর রহমান ভোটের তিন দিন আগে ভোটকেন্দ্র দখল করার কথা বলেন। সেটার চিত্র আমরা দেখতে পাচ্ছি।’

ইশরাক বলেন, ‘আমরা কোনো প্রকার বিশৃঙ্খলা চাই না। এজন্য আমরা কোনো বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করিনি এবং আমাদের কর্মীদেরকেও বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করতে দিইনি।’ বিএনপির প্রার্থী বলেন, ‘আমরা চেয়েছিলাম নির্বাচন কমিশন একটি দায়িত্বশীল ভূমিকা পালন করবে, আইনশৃঙ্খলা বাহিনী দায়িত্বশীল ভূমিকা পালন করবে। সেটা হয়নি, এখন আমরা চারটা পর্যন্ত দেখব। ভোট গণনার পরে দলীয়ভাবে সিদ্ধান্ত আসবে পরবর্তী করণীয় কী।’

এদিকে ভোটগ্রহণ শেষে নয়াপল্টনে সাংবাদিকদের ইশরাক বলেন, ‘নিরপেক্ষ তত্ত্বাবধায়ক সরকার ছাড়া কোনোদিন নিরপেক্ষ ও সুষ্ঠু নির্বাচন সম্ভব না এটা প্রমাণিত হয়েছে। সুষ্ঠু নির্বাচন হলে অন্য প্রার্থীদের জামানত বাজেয়াপ্ত হওয়ার অবস্থা হতো। কারণ সব জরিপে ধানের শীষ অনেক এগিয়ে ছিল।’