| |

Ad

বাহারি রঙ্গের বাঁশশিল্পের সামগ্রী বিলুপ্তির পথে

আপডেটঃ ৮:২৮ অপরাহ্ণ | ফেব্রুয়ারি ১৭, ২০১৯

মো. আবু রায়হান, শেরপুর ঝিনাইগাতী প্রতিনিধি:

শেরপুরে পরিবেশ বান্ধব বাহারি রকমের বাঁশশিল্পের নানা সামগ্রী হারিয়ে যাচ্ছে। প্রতিকুল পরিবেশের বাজারগুলিতে প্লাস্টিকের সামগ্রীতে ছেয়ে গেছে। আর প্লাস্টিকের সাথে পাল্লা দিয়ে টিকতে পারছে না পরিবেশ বান্ধব বাঁশশিল্প। তাই আধুনিক যুগে প্লাস্টিকের ছোবলে গ্রামবাংলা পরিবেশ বান্ধব কুটির শিল্প ও হস্ত শিল্পের বাহারী রকমের নিত্য প্রয়োজনীয় সামগ্রী বিলীন হয়ে যাচ্ছে। উল্লেখ্য, শেরপুর জেলার সিংহভাগ লোক কৃষক, শ্রমিক ও নিম্নআয়ের মানুষ। শ্রমিক ও নিম্নআয়ের মানুষেরা কৃষকের কৃষি কাজে শ্রম বিক্রি করে জীবন-জীবিকা চালায়। কিন্তু বছর জুড়েই কৃষকের কৃষি কাজ থাকে না। কৃষকের কাজ না থাকলে শ্রমিক ও নিম্ন আয়ের মানুষেরা বেকার হয়ে থাকে। তাই এই শ্রমিক ও নিম্ন আয়ের মানুষেরা জীবন-জীবিকার তাগিদে বিভিন্ন কাজে আত্মনিয়োগ করে জীবন পরিচালনা করছে। হাতীবান্দা ইউনিয়নের এমনি একটি গ্রামের নাম হচ্ছে ঘাগড়া। যেখানে নিম্নআয়ের মানুষেরা স্ব-পরিবারে জীবন-জীবিকার তাগিদে বেছে নিয়েছে বাঁশ শিল্পের তৈরী নানা কারুকাজ। আগরবাতির শলাকা বা কাঠি থেকে শুরু করে চালুন, কুলা, হাতপাখা, চাটাই, মাদুর, ঝুড়িব্যাগ, মাছধরা বুরুং, ভাইর, বুকস্লেপ, সিলিংসহ আরও অনেক বাশেঁর তৈরী সামগ্রী বানিয়ে থাকে। এতে প্রায় শতাধিক পরিবারের কর্মসংস্থানের পথ উন্মুক্ত হয়েছে। দীর্ঘদিন থেকে এই গ্রামের শতাধিক পরিবার বাশেঁর এই শিল্পের মাধ্যমে নানা ধরনের আসবাবপত্র থেকে শুরু করে সংসারের প্রয়োজনীয় সামগ্রী তৈরী করে আসছে। কিন্তু এসমস্ত বাশঁ শিল্প তৈরী কারকের পরিবারদের জন্য সরকারী বা বেসরকারী কোন সহায়তা নেই, যে কারণে তারা বেশী দূর এগোতে পারছে না। তাছাড়া বাঁশের দামও আগের চেয়ে বৃদ্ধি পেয়েছে এবং বাজারে বাশঁ পাওয়া যায় কম। এছাড়াও প্লাস্টিকের আসবাবপত্রের সয়লাবের কারণে অনেকটায় ক্ষতিগ্রস্থ্য হচ্ছে এই বাশঁ শিল্প। পরিবেশ বান্ধব এসমস্ত বাঁশ শিল্পের অস্তিত্ব টিকাতে এসমস্ত শ্রমিক পরিবারদের মাঝে স্বল্প সুদে ঋণ সহায়তা ও তাদের তৈরী শিল্পগুলি বাজারে বিপনণ সহায়তা অত্যান্ত জরুরী দরকার। প্রকাশ থাকে যে, মাছ ধরার ও গৃহস্থালী কাজে সিংহভাগ আসবাবপত্র তৈরী হয়ে থাকে পরিবেশ বান্ধব বাঁশ শিল্প থেকে। আর এই বাঁশ শিল্প যদি পরিবেশ দূষণ প্লাস্টিকের জন্য টিকে না থাকতে পারে একদিকে যেমন পরিবেশের উপর বিরূপ প্রভাব পড়বে তেমনি হাজার হাজার শ্রমিক বেকার হয়ে পরিবেশ বান্ধব বাঁশ শিল্প ধ্বংস হয়ে যাবে।