| |

Ad

বৃদ্ধা মাকে সন্তানের হাতে তোলে দিলেন

আপডেটঃ ১১:২৬ অপরাহ্ণ | মার্চ ০৯, ২০১৯

আব্দুর রহমান  নেত্রকোণা : মহাগ্রন্থ আল-কোরআনে স্পষ্ট নির্দেশ আছে মা-বাবা বার্ধক্যে গেলেও তাদেকে অবজ্ঞা করা যাবেনা। তাদের সাথে খারাপ ব্যবহার বা আচরণের তো প্রশ্নই আসেনা। বরং মা-বাবার সাথে তখনও নম্রতায় কথা বলতে হবে। আল্লাহ্‌র পরেই মা-বাবার স্থান।
শনিবার (০৯ মার্চ) দুপুরে অসহায় মাকে তার সন্তানের হাতে তোলে দিতে গিয়ে এভাবেই বলছিলেন নেত্রকোণা মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. বোরহান উদ্দিন খান।
এরআগে ছেলে সাঈদুর রহমানের বিরুদ্ধে ভরণপোষণ না করাসহ জমিজমার জন্য প্রতিনিয়ত নানারকম নির্যাতনের অভিযোগ এনে থানায় এসেছিলেন বয়োবৃদ্ধা অসহায় মা মোসাম্মাৎ রহিমা আক্তার।তিনি নেত্রকোণা পৌরসভার গজিনপুর গ্রামের বাসিন্দা।
ওই মায়ের অভিযোগ মতে ছেলে সাঈদুর তার ভরণপোষণ করেনা। বরং জমিজমা লিখে নিতে চাপপ্রয়োগ করে। আর লিখে না দেয়ায় ঘর থেকে বের করে দেয় শারীরিক অচলাবস্থার বৃদ্ধা ওই মাকে। শেষপর্যন্ত উপায়ন্তর না পেয়ে তিনি অভিযোগ লেখাতে থানার ওসির দ্বারস্থ হন।
এদিকে মৌখিক অভিযোগ পেয়ে ওসির নির্দেশে ছেলে সাঈদুরকে আটক করে তাৎক্ষণিক থানায় নিয়ে আসে পুলিশ সদস্যরা।সংশোধনের সুযোগ দিয়ে সাঈদুরকে মায়ের কাছে ক্ষমা নেয়ার পরামর্শ দেন ওসি বোরহান। সাঈদুর নিজের অপরাধ স্বীকার করে মায়ের পায়ে ধরে  ক্ষমা চান এবং মুচলেকা দিয়ে পুলিশ হেফাজত থেকে মুক্ত হন।
ভবিষ্যতে কখনো মায়ের সাথে খারাপ আচরণ না করা ও ভরণপোষণের প্রতিশ্রুতি দিলে সাঈদুরের হাতে তার মা রহিমাকে আর্থিক সহায়তা দিয়ে তোলে দেন ওসি বোরহান।
নেত্রকোণা মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. বোরহান উদ্দিন খান বলেন, পিতা-মাতার মর্যাদা ও অধিকার সম্পর্কে হাদিসে বহু জায়গায় বর্ণনা এসেছে।
হযরত আবু হুরায়রা (রা.) থেকে বর্ণিত আছে- এক ব্যক্তি রাসুল (সা.) এর কাছে এসে জিজ্ঞাসা করিছিলেন, হে আল্লাহর রাসুল! কে আমার উত্তম আচরণ পাওয়ার বেশি হকদার ? উত্তরে তিনি বলে ছিলেন, তোমার মা। আবার সেই ব্যক্তি প্রশ্ন করলো -তারপর কে? তখনও তিনি উত্তর করলেন, তোমার মা। একই প্রশ্ন আবারো করার পর আবারো উত্তর আসলো মা। আর মায়ের পরে বাবা।
জান্নাত মায়ের পদতলে প্রিয় নবী (সা.) এরশাদ করেছেন জানিয়ে ওসি বলেন, মা-বাবার ভরণপোষণ না করে উল্টো তাদের সাথে কেউ অসদাচরণ করলে তাকে ছাড় দেয়া হবেনা।