| |

Ad

হরিজন পল্লীর দুই মেধাবী সন্তান প্রিয়া এবং পায়েলের স্বপ্নযাত্রার পাশে থাকার প্রতিশ্রুতি

আপডেটঃ ১:২২ অপরাহ্ণ | মে ১৪, ২০১৯

আব্দুর রহমান, নেত্রকোণাঃ 

 নেত্রকোনা পৌর শহরের হরিজন পল্লীর  যুগযুগের রেকর্ড ভেঙে প্রিয়া বাশফোর এবং পায়েল বাশফোর নামে ২জন মেয়ে সম্প্রতি এস এস সি পাশ করেছে আর তাদের কে অভিনন্দন জানতে ছুটে যান আওয়ামীলীগ নেতা গাজী মোজাম্মেল হোসেন টুকু তিনি তাদের হাতে শুভেচ্ছা উপহার তুলে দেন এবং তিনি বলেন সব সময় তাদের পাশে থাকার কথা এবং তাদের সপ্ন যাত্রার প্রতিটি পদক্ষেপে তাদের সাথে থাকবে বলে তিনি জানান,

হরিজন পল্লীর শিক্ষার আলো বঞ্চিতর যুগযুগের রেকর্ড ভেঙে সম্প্রতি সেকেন্ডারি স্কুল সার্টিফিকেট (এসএসসি) পরীক্ষায় পাশ করেছে নেত্রকোনার পায়েল ও প্রিয়া বাশফোর।সপ্তম শ্রেণিতে পড়াকালীন বাল্য বিয়ের হাত থেকে নিজেরাই নিজেদের রক্ষা করে।

এভাবে শিক্ষাজীবনে টিকে শহরের আদর্শ বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় থেকে এসএসসি (কমার্স) পাশ করেছে তারা।নিতান্ত দরিদ্র পরিবারের সন্তান মামাতো-ফুপাতো বোন পায়েল ও প্রিয়া। তারা শহরের পূর্ব চকপাড়া এলাকার হরিজন পল্লীর বাসিন্দা। পল্লীর অতীত বর্তমান জীবনের ইতিহাসে একমাত্র তারাই এসএসসি পাশ।

অতীতে বাল্য বিয়ে থেকে নিজেদের রক্ষা করে এসএসসি পাশ (জিপিএ-৩.৬১) করতে পারলেও আর্থিক দুরাবস্থায় কলেজে ভর্তি বা পড়াশোনা চিন্তিত শিক্ষার্থী এই দুইবোন।পায়েল ও প্রিয়া জানায়, এই পাশের পিছনে শিক্ষিক তমা রায়ের অবদান অনস্বীকার্য। একমাত্র তিনি সবসময় সাহস ও অনুপ্রেরণা হয়ে কাজ করেছেন।

কিন্তু শুরু থেকেই অভাব অনটনের সংসারে ধারদেনা করে পড়াশোনা করানোর ইচ্ছা ছিলো না মা-বাবার। মা-বাবা পৌরসভার অধীনে শহর পরিচ্ছন্ন কর্মী হিসেবে কাজ করে ১ হাজার টাকা মাথাপিছু বেতন পান! জীবনসংগ্রাম তাদের জন্য কতটা নির্মম ও ভয়াবহ হতে পারে এই বেতনের টাকার পরিমান চিন্তা করলে কারো বোঝার বাকি থাকবে না বলে মন্তব্য শিক্ষার্থীদের।পড়াশোনা শেষ করে প্রিয়া পুলিশ কর্মকর্তা এবং শিক্ষক হওয়ার ইচ্ছা ছিলো পায়েলের। তারা দুজনেই দেশ ও মানবসেবায় আত্মনিয়োগ করতে চাই তারা।