| |

Ad

অজুহাত শুনতে চাই না, সরকারের উদ্দেশে ইনু

আপডেটঃ ২:১৫ অপরাহ্ণ | মে ১৯, ২০১৯

সরকারের উদ্দেশে জাসদ সভাপতি ও সাবেক মন্ত্রী হাসানুল হক ইনু বলেছেন, কোনো অজুহাত শুনতে চাই না, কৃষক বাঁচাতে সমন্বিত পদক্ষেপ গ্রহণ করতে হবে। সরকার নির্ধারিত মূল্যে সরাসরি কৃষকের কাছ থেকে ক্রয় করতে হবে।

রোববার (১৯ মে) সকালে জাতীয় প্রেসকাবের সামনে এক মানববন্ধনে তিনি এসব কথা বলেন। সরকার নির্ধারিত ১০৪০ টাকা মণ দরে ধান কেনার দাবিতে জাতীয় কৃষক জোট এই মানববন্ধনের আয়োজন করে।

জাতীয় কৃষক জোটের সাংগঠনিক সম্পাদক রতন সরকারের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত এ মানববন্ধন ও সমাবেশে আরও বক্তব্য দেন- জাসদের সাধারণ সম্পাদক শিরীন আখতার এমপি, জাসদের কার্যকরী সভাপতি রবিউল আলম, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক হাবিবুর রহমান শওকত, সহ-সভাপতি শফি উদ্দিন মোল্লা, শহীদুল ইসলাম, মোহর আলী চৌধুরী, জাতীয় শ্রমিক জোট-বাংলাদেশ এর সভাপতি সাইফুজ্জামান বাদশা, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুর রহমান চুন্নু, রোকনুজ্জামান রোকন, শওকত রায়হান, জাতীয় কৃষক জোটের আন্তর্জাতিক সম্পাদক সাজ্জাদ হোসেন, বাংলাদেশ ছাত্রলীগ (জাসদ) কেন্দ্রীয় সংসদের সভাপতি আহসান হাবীব শামীম ও সাধারণ সম্পাদক রাশিদুল হক ননীসহ জাতীয় কৃষক জোটের কেন্দ্রীয় নেতারা।

হাসানুল হক ইনু বলেন, প্রয়োজনে অর্ধেক দাম আগাম দিয়ে কৃষকের গোলায় ধান রাখা ও সরকারি গুদামে সরবরাহের পর বাকি অর্ধেক দাম পরিশোধ করার পদ্ধতি চালু করে সরাসরি কৃষকের কাছ থেকে ধান ক্রয় করতে হবে।

তিনি বলেন, সরকারি গুদাম খালি না থাকলে বেসরকারি ও ব্যক্তিখাতের গুদাম ভাড়া নিতে হবে। আপাতত চাল আমদানি বন্ধ রাখতে হবে। দেশের চাহিদা অতিরিক্ত উৎপাদিত চাল রপ্তানির ব্যবস্থা করার কথা ভাবতে হবে। সার, বীজ, কীটনাশক, ডিজেল, বিদ্যুৎ, শ্যালো মেশিন, পাওয়ার টিলার, ট্রাক্টর, ডিপ টিউবওয়েল, ধান মাড়াইযন্ত্রসহ কৃষি উপকরণ ও যন্ত্রপাতির দাম কমাতে হবে।

সরকারের কাছে দাবি জানিয়ে সাবেক মন্ত্রী আরও বলেন, সরকারি গুদামের সম্প্রসারণ ও ধারণ ক্ষমতা বৃদ্ধি করতে হবে। সরকারি উদ্যোগে কৃষিপণ্য বিপণন সমবায় গড়ে তুলতে হবে। কৃষকের নিজের উৎপাদিত শস্য নিজের রাখার জন্য সংরক্ষণে গোলা তৈরির জন্য গোলা ঋণ দিতে হবে।